বিএডিসি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কিশোরকে বলাৎকারের অভিযোগ

শেরপুরে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি) হিমাগারের এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এক কিশোরকে (১৩) বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে। ওই অভিযোগের প্রেক্ষি‌তে সোমবার (১ আগস্ট) ওই কিশোরের বাবা বাদী হয়ে শেরপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) জেলা সদর হাসপাতালে ওই কিশোরের ডাক্তারি পরীক্ষা ও আদালতে ২২ ধারার জবানবন্দি গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া বুধবার (৩ আগস্ট) হয়েছে তার বয়স নির্ধারণী পরীক্ষা।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০-২৫ দিন আগে শহরের শেরীব্রিজ সংলগ্ন বিএডিসি (আলু বীজ) হিমাগারের এক কর্মকর্তার কোয়ার্টারে গৃহকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করে ওই কিশোর। এরপর ওই কর্মকর্তা ওই কিশোরকে বলাৎকার করেন এবং বিষয়টি প্রকাশ না করতে ভয়ভীতি দেখান। প্রথমে ভুক্তভোগী কিশোর মা-বাবাকে বিষয়টি জানায়নি।

আরও জানা যায়, সোমবার (১ আগস্ট) সকাল ১০টায় ওই কর্মকর্তা ওই কিশোরকে আবারও বলাৎকার করেন। ঘটনার পর কিশোরটি কান্নাকাটি করতে করতে কোয়ার্টার থেকে বের হওয়ার সময় অফিসের স্টাফসহ কয়েকজন তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে ওই ঘটনা ফাঁস করে দেয়।

পরে খবর পেয়ে তার বাবা ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্তারিত জানতে পারেন এবং সেদিনই ছেলেকে নিয়ে থানায় গিয়ে ওই কর্মকর্তাকে একমাত্র আসামি করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শনসহ ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পেয়ে থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করে।

ঘটনার বিষয়ে জানতে ওই কর্মকর্তার সাথে মুঠোফোনে যোগা‌যোগ করা হলে তি‌নি অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেন, অনৈতিক সু‌বিধা না দেয়ায় এক‌টি পক্ষ তাকে হেয় করার উদ্দেশ্যে এমন জঘন‌্য কাজ করে যা‌চ্ছে।

বুধবার (৩ আগস্ট) বিকেলে জেলা সদর হাসপাতালের আবা‌সিক মে‌ডি‌ক্যাল অফিসার ডা. খাইরুল কবীর সুমন জানান, মঙ্গলবার ওই কিশোরের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তিনি পরীক্ষার বিষয়ে কোন মতামত না দিয়ে জানান, রিপোর্ট দিতে ৪-৫ দিন সময় লাগবে।

এ ব্যাপারে শেরপুর সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) নাঈম মোহাম্মদ নাহিদ হাসান জানান, ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। সেইসাথে আদালতে তার জবানবন্দিও গ্রহণ করা হয়েছে।

ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় ঘটনাটি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ডাক্তারি রিপোর্ট ও তদন্তের পরই জানা যাবে প্রকৃত ঘটনা।