ওবায়দুল কাদেরসহ ৭ মুক্তিযোদ্ধাকে স্বর্ণপদক দিলেন কাদের মির্জা

মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য মুজিব বাহিনীর কমান্ডার বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ সাতজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ‘বীর-৭১’ সম্মাননা (স্বর্ণপদক) দিলেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং ৭ ডিসেম্বর নোয়াখালী মুক্ত দিবস উপলক্ষে সাতজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা পদক প্রদান, মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ ও সকল মুক্তিযোদ্ধাদের শীতবস্ত্র এবং কম্বল বিতরণ, মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের সঙ্গে মধ্যাহ্ন ভোজ অনুষ্ঠান পৌরসভা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।

পদকপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে রয়েছেন মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিব বাহিনীর কমান্ডার সড়ক পরিবহন এবং সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, শহীদ বীর উত্তম নূরুল হক (সিরাজপুর), শহীদ খুরশিদ আলম (মোহাম্মদনগর), শহীদ আবদুল মান্নান (পৌরসভা ৭নম্বর ওয়ার্ড), শহীদ ইসমাইল (পৌরসভা ১ নম্বর ওয়ার্ড), যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আবু নাছের (পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড) এবং আফজালুর রহমান (চর ফকিরা)।

বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে দিনের কার্যক্রম শুরু করেন পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

পরে, বসুরহাট সরকারি মুজিব কলেজ প্রাঙ্গণে কোম্পানীগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতি ধরে রাখতে সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামসহ ‘বীর-৭১ স্মৃতিস্তম্ভ’ নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

এরপর মুক্তিযোদ্ধা ও দেশপ্রেমিক সচেতন নাগরিকদের নিয়ে স্বাধীনতার বর্ণাঢ্য সুবর্ণ জয়ন্তী র‍্যালি বসুরহাট বাজার প্রদক্ষিণ শেষে বঙ্গবন্ধু চত্বরে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র কাদের মির্জা বলেন, আগামীতেও মুক্তিযুদ্ধে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের পদক প্রদান অব্যাহত থাকবে।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ২৯ জানুয়ারি কোম্পানীগঞ্জ আসবেন এবং আওয়ামী লীগের অফিস উদ্বোধন করবেন। ওইদিন ওনাকে (ওবায়দুল কাদের) স্বর্ণপদকটা মুক্তিযোদ্ধা ও বসুরহাট পৌরসভার কাউন্সিলর এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে হস্তান্তর করা হবে।