ছয় শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আটক

যশোরের অভয়নগরে মোবাইল ফোনে পাবজি গেম খেলতে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ছয় শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নিজাম আকুঞ্জী (৩০) নামে স্বেচ্ছাসেবকলীগের এক নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। আটকের পর বুধবার দলীয় পদ থেকে নিজামকে বহিষ্কার করা হয়েছে। আটক নিজাম আকুঞ্জী উপজেলার গুয়াখোলা গ্রামের মৃত মহির উদ্দিন আকুঞ্জীর ছেলে। তিনি অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের ৫নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

বলাৎকারের শিকার এক শিশুর চাচা জানান, মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) দুপুরে তার ভাইপো (১১) বাড়ির পাশের মসজিদ থেকে ফিরছিল। এসময় নিজাম আকুঞ্জী তার ভাইপোকে পাবজি গেম খেলতে দেয়ার কথা বলে ঘরের মধ্যে নিয়ে বলাৎকার করে। বিষয়টি জানাজানি করলে সমস্যা হবে বলে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বাড়ি ফিরে ভাইপো তার বাবা-মাকে জানায়। পরে ভাইপোর মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন আরও পাঁচ শিশুকে একই কৌশলে বলাৎকার করেছে নিজাম। পরবর্তীতে তার ভাইপোর দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঐ পাঁচ শিশুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারাও নিজাম আকুঞ্জীর বিরুদ্ধে বলাৎকারের অভিযোগ করে। বিষয়টি গ্রামবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজিত জনতা নিজামকে ধরে ৯৯৯-এ ফোন করে। পরে অভয়নগর থানা পুলিশ নিজামকে আটক করে নিয়ে যায়।

নওয়াপাড়া পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহবায়ক মেহেদী ইসলাম রাজন জানান, বিষয়টি জানার পর নিজাম আকুঞ্জীর বিরুদ্ধে দলীয় গঠনতন্ত্র বিরোধী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে দলীয় পদ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।অভয়নগর থানার (ওসি) একেএম শামীম হাসান জানান, আটক নিজাম আকুঞ্জীর বিরুদ্ধে ছয় শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়ায় মঙ্গলবার রাতে তাকে আটক করা হয়েছে। সেই সঙ্গে নারী ও শিশু নির্যাতনের অভিযোগে মামলা হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) তাকে যশোর আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া ভিকটিম ছয় শিশুকে তাদের পরিবারের সঙ্গে যশোরে সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষাসহ ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদানের জন্য আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।