কবিরাজের কথায় প্রতিবন্ধীকে পানিতে চুবানোর পর মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেক ইউনিয়নে কবিরাজের কথায় পানিতে চুবানোয় লিপি আক্তার (২৬) নামে মানসিক প্রতিবন্ধী এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার আলীরটেক ইউনিয়নের কুড়েরপাড় এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এ ঘটনায় পুলিশ সৎ বাবা আজহার মিয়া ও ভাই আল আমিনকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার শাহ জামান জানান, লিপি আক্তার মানসিক প্রতিবন্ধী ছিলেন। তাকে সুস্থ করার জন্য কবিরাজের কাছে নিয়ে যায় তার সৎ বাবা ও আপন ভাই। ঐ সময় কবিরাজ লিপি আক্তারকে দিনে দুই দফা (সকাল ও বিকাল) ১০১ বার পানিতে ডুব দেওয়ার জন্য বলেন। এভাবে পানিতে ডুব দিলে লিপি সুস্থ হয়ে উঠবে। তাই কবিরাজের কথায় কয়েক দিন ধরে পানিতে চুবান সৎ বাবা ও ভাই। এর অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার বিকালে লিপি যেতে না চাইলে তাকে জোর করে পানিতে নিয়ে চুবাতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে লিপি পানিতে মারা যান।

ওসি বলেন, ‘ঘটনার পর স্থানীয়দের মধ্যে জানাজানি হলে বাবা ও ছেলে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লিপির মরদেহ উদ্ধার করে। পরে অভিযান চালিয়ে ঐ এলাকা থেকে বাবা ও ছেলেকে আটক করা হয়। আর নির্দেশদাতা কবিরাজকেও আটকে অভিযান অব্যাহত আছে। একই সঙ্গে এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ময়নাতদন্তের পর লিপির মৃত্যুর কারণ বলা যাবে।’